আমেরিকান ছাত্র-ছাত্রী নিয়ে নিউজার্সীতে একাত্তরের গণহত্যার উপর আন্তর্জাতিক সেমিনার
এইদেশ সংগ্রহ , শনিবার, জানুয়ারি ১২, ২০১৩


এনা, নিউইয়র্ক ১১ জানুয়ারি ২০১৩ বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় গণহত্যা-ধর্ষণ-অগ্নিসংযোগের উপর গুরুত্বপূর্ণ একটি সেমিনার হলো নিউজার্সীতে। এ সেমিনারের শ্রোতা ছিল নিউজার্সী অঙ্গরাজ্যের বিভিন্ন হাই স্কুলের ৪ শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী এবং শিক্ষক। ‘নিউজার্সী কমিশন অন হলোক্যোস্ট এডুকেশন’ দিনব্যাপী এ সেমিনারের আয়োজন করে প্লেইন্স বরো সিটিতে। গত বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে বাংলাদেশের সে সময়ের ভয়ংকর পরিস্থিতির উপর বক্তব্য উপস্থাপন করেন টাঙ্গাইলের কাদেরিয়া বাহিনীর থার্ড ইন কমান্ড হিসেবে মুক্তিযুদ্ধে অসম বীরত্ব প্রদর্শনকারী ড. নূরন্নবী।

ড. নবী জাপান এবং যুক্তরাষ্ট্রের সেরা বিদ্যাপিঠ থেকে ডক্টরেটসহ উচ্চতর ডিগ্রি লাভের পর যুক্তরাষ্ট্রে কলগেট পালমলিভ কোম্পানীতে চাকরি করেন। সে কোম্পানীর গবেষক হিসেবে তিনি ‘কলগেট টোটাল টুথপেস্ট টেকনোলজির উদ্ভাবন করেন। চাকরি থেকে অবসরের পর তিনি নিউজার্সী অঙ্গরাজ্যের প্লেইন্সবরো সিটির কাউন্সিলম্যান হিসেবে জয়ী হয়েছেন। গত ৬ নভেম্বরের নির্বাচনেও তিনি ডেমক্র্যাটিক পার্টি থেকে তৃতীয়বারের জন্যে কাউন্সিলম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। পবিত্র কোরআন ছুঁয়ে তৃতীয় টার্মে দায়িত্ব পালনের জন্য শপথ গ্রহণের পরই অনুষ্ঠিত হয় এ সেমিনার। এতে দারফুরের গণহত্যার উপর বক্তব্য রাখেন ড. জেরী ইহলিচ, রুয়ান্ডায় গণহত্যার উপর বক্তব্য রাখেন ড. ইউজেনি মুখেশিমানা।

বিশ্বব্যাপী গণহত্যার উপর সামগ্রিক আলোকপাত করেন ড. ভেরা গুডকিন এবং ড. ডন টোও। ৩ ঘন্টার এ সেমিনারটি যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রজন্মের কাছে বাংলাদেশের গণহত্যার তথ্য পৌঁছে দিতে অপরিসীম ভূমিকা রাখবে বলে উল্লেখ করেন এ সেমিনারের আয়োজক সংস্থার প্রধান ড. পল উইঙ্কলার। অংশগ্রহণকারী ছাত্র-ছাত্রীর সকলেই শ্বেতাঙ্গ এবং কৃষ্ণাঙ্গ, তারা নিজ নিজ স্কুলে ফিরে গিয়ে গণহত্যার ভয়াবহতার বিরুদ্ধে সহপাঠিদের সচেতন এবং গণহত্যায় লিপ্তদের ঘৃণা করার শিক্ষা দেবে। বাংলাদেশের গণহত্যা, ধর্ষণ এবং অগ্নিসংযোগের ভয়াবহ ঘটনাবলী উপস্থাপনের সময় ড. নূরন্নবী সকলের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান চলমান যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের পক্ষে অবস্থান নেয়ার জন্য। মানবতার প্রশ্নে, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে একাত্তরের ঘাতকদের বিচার সম্পন্ন করা জরুরী বলেও উল্লেখ করেন ড. নবী।

(বিডিএনএন২৪-এ প্রকাশিত)