বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে নিউইয়র্কে ‘প্রজন্ম একাত্তর’র সংকল্প
এইদেশ সংগ্রহ , শনিবার, জানুয়ারি ১২, ২০১৩


এনা, নিউইয়র্ক ১১ জানুয়ারি ২০১৩ আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার পথ সুগম করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়তে একাত্তরের ঘাতকদের বিচার সম্পন্নের বিকল্প নেই এবং সে বিচার ত্বরান্বিত করতে আন্তর্জাতিক জনমত জোরদারের সংকল্পে নিউইয়র্কে গঠিত হলো ‘প্রজন্ম-একাত্তর’র যুক্তরাষ্ট্র শাখা। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ১০ জানুয়ারি সন্ধ্যায় (বাংলাদেশ সময় শুক্রবার সকাল) নিউইয়র্ক সিটির ব্র“কলীনে অনুষ্ঠিত মুক্তিযোদ্ধা এবং মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের মিলনমেলায় ‘প্রজন্ম একাত্তর’র কমিটি ঘোষণা করেন যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আহবায়ক নূরনবী কমান্ডার। মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মাহমুদা বেলালের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা-বিজ্ঞানী এবং নিউজার্সীর প্লেইন্সবরো সিটির কাউন্সিলম্যান ড. নূরন নবী।



বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন সন্দ্বীপের মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রফিকুল ইসলাম, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞানের ডীন ড. হুসাইন কবীর, সাপ্তাহিক বাঙালির সম্পাদক কৌশিক আহমেদ, ১১ নম্বর সেক্টরের মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিক লাবলু আনসার, যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী এবং সেক্রেটারী শাহীন ইবনে দিলওয়ার, যুব কমান্ডের প্রধান উপদেষ্টা ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নূরল আমিন, বাংলাদেশ সোসাইটির সেক্রেটারী জয়নাল আবেদীন, সন্দ্বীপ এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি জিয়াউদ্দিন কানু, সেক্রেটারী আশরাফউদ্দিন, ব্র“কলীন আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী জাহাঙ্গির আলম, চার্চ-ম্যাকডোনাল্ড আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মো. আলাউদ্দিন এবং সেক্রেটারী মমিনুল হক সুমন প্রমুখ। প্রজন্ম একাত্তরের বাংলাদেশ চেপ্টারের সদস্যা বিশিষ্ট অভিনেত্রী মোমেনা চৌধুরী মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক নাটক ‘লাল জমি’র অংশ বিশেষ মঞ্চস্থ করে উপস্থিত সকলকে আপ্লুত করেন। মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে রচিত একটি গণসঙ্গীত পরিবেশন করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সদস্য মোস্তফা কামাল পাশা। প্রচন্ড ঠান্ডা সত্বেও বিপুলসংখ্যক প্রবাসীর সমাগম ঘটে এ অনুষ্ঠানে।

মুক্তিযোদ্ধাদের স্বপ্ন পূরণে অঙ্গিকার ব্যক্ত করে গঠিত প্রজন্ম একাত্তরের সকল কর্মকর্তাই হচ্ছেন মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান। সকলকে পরিচয় করিয়ে দেয়ার পাশাপাশি তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাংলাদেশ গড়তে নিরন্তর প্রয়াস চালিয়ে যাবার সংকল্প ব্যক্ত করেন। এরপর বিপুল করতালির মধ্যে ‘প্রজন্ম একাত্তর’র যুক্তরাষ্ট্র শাখার প্রেসিডিয়াম মেম্বারদের নাম ঘোষণা করেন নূরনবী কমান্ডার। এরা হলেন শিবলী সাদিক শিবলু, মাহমুদা বেলাল, আব্দুল মতিন পারভেজ, সোহরাব হোসেন এবং নূরল কবির রণি। সেক্রেটারী হয়েছেন তারিকুল ইসলাম মাসুম। যুগ্ম সম্পাদক হচ্ছেন আশরাফ আলী লিটন এবং সৌরভ প্রামাণিক।

নবগঠিত প্রজন্ম একাত্তরের কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে মুক্তিযুদ্ধে কাদেরিয়া বাহিনীর থার্ড ইন কমান্ড ও মূলধারার রাজনীতিক ড. নূরন্নবী বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা যখন থাকবেন না, তখন প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে এই কমিটি বঙ্গবন্ধুর চেতনা লালন করে যাবে। মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাসে প্রবাসের প্রজন্মকে অবহিত করতে এ কমিটির দায়িত্ব অপরিসীম বলেও উল্লেখ করেন তিনি। ড. নবী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের নাম-নিশানা মুছে ফেলার গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। একে রুখতে হবে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে। তিনি এ সময় উল্লেখ করেন, ‘গত বৃহস্পতিবার নিউজার্সী অঙ্গরাজ্যের ৪ শতাধিক হাই স্কুল ছাত্র-ছাত্রী এবং তাদের শিক্ষকদের উপস্থিতিতে এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে বাংলাদেশে একাত্তরের গণহত্যার উপর আমি দীর্ঘ বক্তব্য উপস্থাপন করেছি এবং নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে একাত্তরের ঘাতকদের বিচারের পক্ষে মার্কিনীদের জোরালো ভূমিকার আহবান রেখেছি।’ এদিকে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আসছে রোববার নিউইয়র্কে আরেকটি সমাবেশের প্রস্তুতি চলছে। যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের উদ্যোগে ঐ সমাবেশ থেকে মুক্তিযুদ্ধে বিদেশী বন্ধুদের সম্মাননা জানানো হবে।
(বিডিএনএন২৪-এ প্রকাশিত)